ডাচ বাংলা ব্যাংক লোন সম্পর্কিত বিস্তারিত তথ্য 2022

ডাচ বাংলা ব্যাংক থেকে খুব সবজেই অল্প সুদে যখন তখন লোন পাওয়া যায়। বৈধ ডকুমেন্টস দেখিয়ে যেকোনো স্বনির্ভর ব্যক্তিগণ এমনকি স্টুডেন্টরাও ডাচ বাংলা ব্যাংক থেকে লোন নিতে পারে। ডাচ বাংলা ব্যাংক লোন তাই অনেকের কাছেই জনপ্রিয়। 

সর্বনিম্ন ৫০ হাজার থেকে সর্বোচ্চ ২ কোটি টাকা পর্যন্ত বিভিন্ন খাতে ডাচ বাংলা ব্যাংক লোন প্রদান করে। বৈধ কাগজপত্র দেখিয়ে নূন্যতম ৩০ হাজার টাকা মাসিক আয়ের ব্যক্তিগণ খুব সহজেই ডাচ বাংলা ব্যাংক থেকে লোন নিতে পারেন।

আরো কিছু প্রয়োজনীয় তথ্য জানতে আজকের লেখাটি পড়ে ফেলুন শেষ পর্যন্ত। 

ডাচ বাংলা ব্যাংক লোন; জানুন প্রয়োজনীয় সব তথ্য

হোম লোন, কার লোন, ব্যবসা লোন, শিক্ষা লোন, প্রবাসী লোন ইত্যাদি সকল প্রকার লোন সুবিধা ডাচ বাংলা ব্যাংক থেকে আপনি পেতে পারেন। অন্যান্য ব্যাংকের মতো ডাচ বাংলা ব্যাংকে লোন নেওয়ার সময় খুব বেশি ঝামেলা পোহাতে হয় না। 

ডাচ বাংলা ব্যাংক এর বিভিন্ন লোন সম্পর্কে নীচে বিস্তারিত আলোচনা করা হলো। সঠিক তথ্য জেনে আপনিও ডাচ বাংলা ব্যাংক লোন এর জন্য আবেদন করতে পারেন।

ডাচ বাংলা ব্যাংক লোন
ডাচ বাংলা ব্যাংক লোন

1. পার্সোনাল লোন

ব্যক্তি তার নিজ প্রয়োজনে ডাচ বাংলা ব্যাংক থেকে লোন নিতে পারবে। এখানে আপনি সর্বোচ্চ ২ লক্ষ টাকা পর্যন্ত লোন নিতে পারবেন। তবে এক্ষেত্রে আপনাকে অবশ্যই স্বনির্ভর হতে হবে। 

প্রয়োজনীয় ডকুমেন্টস এর ভিত্তিতে খুব সহজেই আপনি ডাচ বাংলা ব্যাংক থেকে লোন পাবেন। যা মাসিক কিস্তিতে আপনাকে পরিশোধ করতে হবে। 

যারা আবেদন করতে পারবেন:

ডাচ বাংলা ব্যাংক থেকে ব্যক্তিগত লোন পেতে আপনাকে নিম্নোক্ত যেকোনো একটি শ্রেণীর মানুষ হতে হবে৷ অন্যথা আপনি আবেদন করতে পারবেন না। 

  • বেতনভোগী ব্যক্তি। 
  • যেকোনো পেশার মানুষ। 
  • বাড়িওয়ালা। 
  • যেকোনো ধরণের ব্যবসায়ী। 

লোনের পরিমাণ, সুদ, ও মেয়াদ:

০ হাজার থেকে শুরু করে ২ লাখ টাকা পর্যন্ত ডাচ বাংলা ব্যাংক থেকে আপনি পার্সোনাল লোন নিতে পারবেন। এবং এর সর্বোচ্চ মেয়াদ ৫ বছর। বিস্তারিত জানতে নিচের ছকটি দেখুন। 

লোনের পরিমাণ (সর্বনিম্ন)৫০ হাজার 
লোনের পরিমাণ (সর্বোচ্চ)২ লাখ
মেয়াদ১ থেকে ৫ বছর
সুদের হার (নতুন লোনের ক্ষেত্রে)৮%
সুদের হার (অন্য ব্যাংক থেকে টেক-ওভার)৭.৫০%
প্রসেসিং ফি (নতুন লোনের ক্ষেত্রে)০.৫ – ১%
প্রসেসিং ফি (অন্য ব্যাংক থেকে টেক-ওভার)নেই
ডাচ বাংলা ব্যাংক পার্সোনাল লোন

প্রয়োজনীয় ডকুমেন্টস:

ডাচ বাংলা ব্যাংক পার্সোনাল লোন পেতে অবশ্যই আপনাকে স্বনির্ভর ব্যক্তি হতে হবে এবং মাসিক আয় সর্বনিম্ন ২০ হাজার টাকা হতে হবে। এছাড়া প্রয়োজনীয় যেসব ডকুমেন্টসগুলো লাগবে তা নিম্নে উল্লেখ করা হলো। 

  • ২ কপি পাসপোর্ট সাইজের ছবি।
  • ভোটার আইডি কার্ডের কপি। 
  • চাকুরীজীবীদের ক্ষেত্রে ইইন্ট্রোডাকশন লেটার, বেতন হিসাবের বিবরণী ও অফিস আইডি।
  • ব্যবসায়ীদের ক্ষেত্রে বিজনেস কার্ড। 
  • ড্রাইভারদের ক্ষেত্রে ড্রাইভিং লাইসেন্স। 
  • টি-এন্ড-টি, মোবাইল ফোন, অথবা অন্যান্য ইউটিলিটি বিলের কপি। 
  • সর্বশেষ ১ বছরের ব্যাংক হিসাব। 
  • ট্যাক্স সার্টিফিকেট। 

2. হোম লোন

বাড়ি তৈরির জন্য ডাচ বাংলা ব্যাংক থেকে আপনি বড় অংকের লোন নিতে পারবেন। এক্ষেত্রে সর্বোচ্চ ২ কোটি টাকা পর্যন্ত লোন পাওয়া যায়। এতে আপনার বাড়ি তৈরি করার প্রাথমিক খরচ অনেকাংশেই লাঘব হবে।

Home Loan | হোম লোন
Home Loan | হোম লোন

যারা আবেদন করতে পারবেন: 

বাড়ি তৈরির জন্য ডাচ বাংলা ব্যাংক থেকে লোন নিতে আপনাকে নিম্নোক্ত যোগ্যতাসম্পন্ন ব্যক্তি হতে হবে। এবং অবশ্যই এদেশের নাগরিক হতে হবে। 

  • বিভিন্ন পেশাজীবি। 
  • বাড়ির মালিক।
  • নূন্যতম আয় মাসিক ৩০ হাজার।
  • সর্বনিম্ন বয়সসীমা ১৮ বছর ও সর্বোচ্চ ৭০ বছর। 

লোনের পরিমাণ, সুদ, ও মেয়াদ: 

ডাচ বাংলা ব্যাংক হোম লোন এর সবচেয়ে বড় সুবিধা ২৫ বছর পর্যন্ত আপনি লোন শোধ করার সময় পাবেন। বিস্তারিত ছকে দেওয়া হলো। 

লোনের পরিমাণ (সর্বনিম্ন)২ লাখ
লোনের পরিমাণ (সর্বোচ্চ)২ কোটি
মেয়াদ১ থেকে ২৫ বছর
সুদের হার (নতুন লোনের ক্ষেত্রে)৭.৫০%
সুদের হার (অন্য ব্যাংক থেকে টেক-ওভার)৭.০০% 
প্রসেসিং ফি (নতুন লোনের ক্ষেত্রে)০.৫% – ১% 
প্রসেসিং ফি (অন্য ব্যাংক থেকে টেক-ওভার)নেই
ডাচ বাংলা ব্যাংক হোম লোন

প্রয়োজনীয় ডকুমেন্টস: 

উপযুক্ত ডকুমেন্টস ছাড়া কখনোই বড় ধরনের লোন পাওয়া সম্ভব নয়। তাই ডাচ বাংলা ব্যাংক থেকে হোম লোন পেতে কী কী কাগজপত্র লাগবে তা মনোযোগ সহকারে দেখুন।

আরো পড়ুনঃ অগ্রণী ব্যাংক লোন সিস্টেম নিয়ে বিস্তারিত জেনে নিন

ব্যক্তিগত ডকুমেন্টস:

  • ভোটার আইডি কার্ডের কপি। 
  • ইউটিলিটি বিল অর্থাৎ গ্যাস, পানি, বিদ্যুৎ বিলের কপি।
  • সদ্য তোলা পাসপোর্ট সাইজের দুই কপি রঙিন ছবি। 
  • চাকুরিজীবী ও ব্যবসায়ীদের ক্ষেত্রে অফিস আইডি কার্ড বা বিজনেস কার্ড। 
  • এপোয়েন্টমেন্ট লেটার। (চাকুরিজীবীদের ক্ষেত্রে)
  • ট্যাক্স সার্টিফিকেট। 
  • বাড়ি বা সম্পত্তির লিজ চুক্তিপত্র। 
  • বিগত ১ বছরের ব্যাংক স্টেটমেন্ট। 

জমি সংক্রান্ত ডকুমেন্টস: 

  • মূল দলিলের কপি।
  • জমির মালিক ও ক্রেতার চুক্তিপত্র দলিলের কপি। 
  • এসএ, সিএস, ডিসিআর, আরএস, মিউটেশন এবং সর্বশেষ গনিত পর্চা দলিল।
  • খতিয়ান এসি ল্যান্ড দ্বারা মিউটেশন সঠিকভাবে প্রত্যায়ন।
  • বিয়া চুক্তি ও মৌজা ম্যাপের ফটোকপি।
  • আজমালি জমি হলে তার নিবন্ধিত পার্টিশন দলিল।  

3. ব্যবসায় লোন

একটি ব্যবসায় দাঁড় করাতে মূলধন প্রয়োজন হয়। আর সেই মূলধনের ব্যবস্থা আপনি করতে পারেন ডাচ বাংলা ব্যাংকের মাধ্যমে। ব্যবসায় উদ্যোক্তাদের জন্য ডাচ বাংলা ব্যাংক ৫০ হাজার থেকে ২০ লাখ টাকা পর্যন্ত লোন সুবিধা দেয়। নীচে জানুন বিস্তারিত। 

যারা আবেদন করতে পারবেন: 

ডাচ বাংলা ব্যাংক থেকে ব্যবসায় লোন পেতে আপনাকে নিম্নোক্ত শ্রেণীর মানুষ হতে হবে। এবং অবশ্যই ডাচ বাংলা ব্যাংকে একটি একাউন্ট খুলতে হবে। 

  • যেকোনো পেশায় নিয়োজিত ব্যক্তি অথবা বাড়ির মালিক। 
  • নূন্যতম আয় ২০ হাজার টাকা। 
  • ডাচ বাংলা ব্যাংকের গ্রাহক। 
  • সর্বনিম্ন বয়স সীমা ১৮। 

লোনের পরিমাণ, সুদ, ও মেয়াদ: 

মাত্র ৮% সুদে সর্বোচ্চ ২০ লাখ টাকা পর্যন্ত আপনি ডাচ বাংলা ব্যাংক থেকে লোন নিতে পারবেন। মাসিক ভিত্তিতে এই লোন শোধ করার সময় পাবেন সর্বোচ্চ ৫ বছর। 

লোনের পরিমাণ (সর্বনিম্ন)৫০ হাজার
লোনের পরিমাণ (সর্বোচ্চ)২০ লাখ
মেয়াদ১ থেকে ৫ বছর
সুদের হার (নতুন লোনের ক্ষেত্রে)৮% 
সুদের হার (অন্য ব্যাংক থেকে টেক-ওভার)৭.৫% 
প্রসেসিং ফি (নতুন লোনের ক্ষেত্রে)১% 
প্রসেসিং ফি (অন্য ব্যাংক থেকে টেক-ওভার)নেই
ডাচ বাংলা ব্যাংক ব্যবসায় লোন

প্রয়োজনীয় ডকুমেন্টস: 

নিম্নোক্ত কাগজপত্রের ভিত্তিতে ডাচ বাংলা ব্যাংক থেকে খুব সহজেই আপনি ব্যবসায় লোন পাবেন। মনে রাখবেন, এক্ষেত্রে অবশ্যই সঠিক কাগজপত্র জমা দিতে হবে। 

  • ভোটার আইডি কার্ড অথবা পাসপোর্টের ফটোকপি। 
  • ২ কপি পাসপোর্ট সাইজের ছবি। 
  • বিগত ১ বছরের ব্যাংক হিসাব।
  • আইডি কার্ড ও বেতন হিসাবের বিবরণী। (চাকুরিজীবীর ক্ষেত্রে)
  • ট্রেড লাইসেন্স ও বিজনেস কার্ড। (ব্যবসায়ীদের ক্ষেত্রে)
  • টি এন্ড টি।
  • ট্যাক্স সার্টিফিকেট। 
  • ইউটিলিটি বিলসমূহ।

আরো পড়ুনঃ সিটি ব্যাংক লোন নিয়ে বিস্তারিত | City Bank Loan System

4. কার লোন 

নিত্যপ্রয়োজনীয় জিনিসের মতো গাড়ি কেনার চাহিদাও এখন অনেক। রাস্তাঘাটের জ্যাম এড়িয়ে সুন্দর জীবনযাত্রায় গাড়ির বিকল্প নেই। তবে হুট করে গাড়ি কেনাও চাট্টেখানি কথা নয়। কিন্তু ভয় নেই। প্রয়োজনীয় ডকুমেন্টস দেখিয়ে গাড়ি কেনার জন্যেও আপনি ডাচ বাংলা ব্যাংক থেকে লোন নিতে পারবেন। 

যারা আবেদন করতে পারবেন: 

অন্যান্য লোনের মতো গাড়ি কেনার জন্য লোন পেতে অবশ্যই আপনার ইনকাম সোর্স ব্যাংক দেখতে চাইবে। উপযুক্ত প্রমাণ দিতে পারলে সর্বোচ্চ ৪০ লাখ পর্যন্ত আপনি লোন পেতে পারেন। 

  • যেকোনো পেশার মানুষ। 
  • নূন্যতম মাসিক আয় ৩০ হাজার টাকা।
  • বয়স সীমা ১৮ থেকে গ্রাহকের অবসর নেওয়ার সময়কাল। 

লোনের পরিমাণ, সুদ, ও মেয়াদ: 

৮ শতাংশ সুদে দীর্ঘ ৫ বছর মেয়াদী ডাচ বাংলা ব্যাংক লোন নিয়ে আপনি গাড়ি কিনতে পারেন। মাসিক কিস্তিতে এই টাকা আপনাকে পরিশোধ করতে হবে। বিস্তারিত নিম্নোক্ত ছকে তুলে ধরা হলো। 

লোনের পরিমাণ (সর্বনিম্ন)৫০ হাজার 
লোনের পরিমাণ (সর্বোচ্চ)৪০ লাখ
মেয়াদ ১ থেকে ৫ বছর
সুদের হার (নতুন লোনের ক্ষেত্রে)৮% 
সুদের হার (অন্য ব্যাংক থেকে টেক-ওভার)৭.৫%
প্রসেসিং ফি (নতুন লোনের ক্ষেত্রে)১% 
প্রসেসিং ফি (অন্য ব্যাংক থেকে টেক-ওভার)নেই
কার লোন

প্রয়োজনীয় ডকুমেন্টস:

গাড়ি কেনার জন্য ডাচ বাংলা ব্যাংক লোন পেতে নিম্নোক্ত ডকুমেন্টস প্রয়োজন হবে। অবশ্যই সঠিক কাগজপত্র জমা দিয়ে ব্যাংক কর্মকর্তাকে সহায়তা করবেন। 

  • জাতীয় পরিচয়পত্রের ফটোকপি। 
  • ১ কপি পাসপোর্ট সাইজের ছবি।
  • কমপক্ষে ৬ মাসের ব্যাংক স্টেটমেন্ট। 
  • আপনার চাকুরি বা ব্যবসার প্রমাণাদি। 
  • টি এন্ড টি (৫ লক্ষের অধিক লোনের ক্ষেত্রে।
  • পারসোনাল গ্যারান্টি প্রদান। (ব্যাংক কর্তৃক অনুরোধকৃত নির্দিষ্ট ডকুমেন্টস)

5. শিক্ষা লোন 

আজকাল পড়াশোনার ক্ষেত্রে শুধু স্কুল কলেজের বেতনই নয়, প্রাইভেট কোচিংয়ের ফি বাবদই খরচ হয় বিপুল পরিমাণ অর্থ। এছাড়া স্টুডেন্ট যদি কোনো বিশেষ পরীক্ষার ক্যান্ডিডেট হয়, যেমন এস-এস-সি, এইচ-এস-সি, এডমিশন, তবে বাবা-মাকে গুণতে হয় মোটা অংকের টাকা।

শিক্ষা লোন | Student Loan
শিক্ষা লোন

তাই, স্টুডেন্টদের যাবতীয় খরচের চাপ থেকে মুক্তি পেতে ডাচ বাংলা ব্যাংক ইস্যু করে শিক্ষা লোন। যা স্টুডেন্ট লোন নামেও পরিচিত। 

যারা আবেদন করতে পারবেন: 

ডাচ বাংলা ব্যাংক শিক্ষা লোন এর জন্য অবশ্যই বিভিন্ন শ্রেণির স্টুডেন্ট আবেদন করতে পারবে। 

  • অবশ্যই স্টুডেন্ট হতে হবে।
  • বাংলাদেশের নাগরিক হতে হবে।

লোনের পরিমাণ, সুদ, ও মেয়াদ:

স্টুডেন্টদের জন্য সর্বোচ্চ ১০ লক্ষ টাকা পর্যন্ত লোন ইস্যু করে থাকে ডাচ বাংলা ব্যাংক। সর্বোচ্চ ৫ বছর মেয়াদি এই লোনে সুদের হার ৮%।

লোনের পরিমাণ (সর্বনিম্ন)৫০ হাজার
লোনের পরিমাণ (সর্বোচ্চ)১০ লাখ
মেয়াদ১ থেকে ৫ বছর
সুদের হার (নতুন লোনের ক্ষেত্রে)৮%
সুদের হার (অন্য ব্যাংক থেকে টেক-ওভার)৭.৫% 
প্রসেসিং ফি (নতুন লোনের ক্ষেত্রে)১% 
প্রসেসিং ফি (অন্য ব্যাংক থেকে টেক-ওভার)নাই 
শিক্ষা লোন

প্রয়োজনীয় ডকুমেন্টস: 

শিক্ষার্থীদের ক্ষেত্রে প্রয়োজনীয় ডকুমেন্টস না থাকলে তারা বাবা মায়ের ব্যক্তিগত কাগজপত্র দেখিয়ে লোন নিতে পারবে। শিক্ষা লোনের ক্ষেত্রে যে ডকুমেন্টসগুলো প্রয়োজন তা হলো।

  • জাতীয় পরিচয়পত্রের কপি।
  • পরিষ্কার স্টুডিও ফটোগ্রাফ।
  • বিগত ৬ মাসের ব্যাংকস্লিপ। 
  • চাকুরিজীবী অভিভাবকের বেতন স্লিপ।
  • অভিভাবক ব্যবসায়ী হলে ট্রেড লাইসেন্স। 
  • TIN এর কপি। 

6. স্যালারি লোন

সর্বোচ্চ ২০ লক্ষ টাকা পর্যন্ত ডাচ বাংলা ব্যাংক স্যালারি লোন দিয়ে থাকে। আবেদনকারীকে অবশ্যই ১৮ থেকে ৬০ বছর বয়সসীমার মধ্যে হতে হবে। এবং অবশ্যই ডাচ বাংলা ব্যাংকে একাউন্ট থাকতে হবে। 

যারা আবেদন করতে পারবেন: 

  • বিভিন্ন পেশার মানুষ। 
  • বয়সসীমা ১৮ থেকে ৬০। 

লোনের পরিমাণ, সুদ, ও মেয়াদ:

৯% সুদে ডাচ বাংলা ব্যাংক স্যালারি লোন প্রদান করে থাকে। বিস্তারিত দেখুন ছকে। 

লোনের পরিমাণ (সর্বনিম্ন)১০ হাজার 
লোনের পরিমাণ (সর্বোচ্চ)২০ লাখ
মেয়াদ৫ বছর
সুদের হার (নতুন লোনের ক্ষেত্রে)৯%
সুদের হার (অন্য ব্যাংক থেকে টেক-ওভার)৮.৫% 
প্রসেসিং ফি (নতুন লোনের ক্ষেত্রে)১% 
প্রসেসিং ফি (অন্য ব্যাংক থেকে টেক-ওভার) নাই 
স্যালারী লোন

প্রয়োজনীয় ডকুমেন্টস: 

নিম্নোক্ত ডকুমেন্টস দিয়ে খুব সহজেই আপনি ডাচ বাংলা ব্যাংক লোন পেতে পারেন। 

  • পাসপোর্ট সাইজের রঙিন ছবি। 
  • ভোটার আইডি অথবা পাসপোর্টের কপি।
  • আয় বা পেশার প্রমাণাদি।
  • চাকুরিজীবী হলে বেতন স্লিপ ও এপোয়েন্টমেন্ট লেটার। 
  • ৬ মাসের ব্যাংক হিস্ট্রি।

7. প্রবাসী লোন

প্রবাসে অনেকের অনেক সময় টাকার প্রয়োজন হয়৷ ডাচ বাংলা ব্যাংকে প্রবাসীদেরও লোন দেওয়ার সুব্যবস্থা রয়েছে। এক্ষেত্রে দেশের আত্মীয় সজনদের গ্যারান্টার রেখে ও প্রয়োজনীয় ডকুমেন্টস দেখিয়ে প্রবাসী ব্যক্তি লোন নিতে পারবে৷

প্রয়োজনীয় ডকুমেন্টস: 

নিম্নোক্ত ডকুমেন্টস এর সত্যতা প্রমাণ হলে প্রবাসী ব্যক্তি ডাচ বাংলা ব্যাংক থেকে লোন নিতে পারবেন। 

  • ১৮ বছর বয়স হতে হবে। 
  • প্রবাসে স্থায়ী বাসিন্দা হতে হবে। 
  • পাসপোর্টের ফটোকপি। 
  • BMIT এর স্মার্টকার্ড। 
  • কর্মরত দেশের আইডি কার্ডের কপি। 
  • বৈধ রেমিটেন্সের প্রমাণ। 
  • প্রবাসে কর্মসংস্থানের প্রমাণাদি।

BDBL Loan calculator

Loan Amount (Tk.)

Interest Rate %

Loan Period (Years)


Monthly Instalment (Tk.)

Total Payment (Tk.)

Total Interest (Tk.)

Please note that calculated monthly installment amount (EMI) is approximate. Kindly do not consider this to be the final EMI as the amount may vary depending on the date of disbursement of the loan and 1st repayment (EMI) date.

ডাচ বাংলা ব্যাংক লোন সম্পর্কিত আরোকিছু প্রশ্ন ও উত্তর

প্রশ্ন: ডাচ বাংলা ব্যাংক বাইক লোন কীভাবে পাবো?

উত্তর: আমাদের জানা মতে, ডাচ বাংলা ব্যাংক বাইক কেনার জন্য লোন দেয় না। কেননা, ব্যাংক শুধুমাত্র আর্থিক বিড়ম্বনা দূর করতে লোন প্রদান করে। বিলাসিতার জন্য নয়।

প্রশ্ন: ডাচ বাংলা ব্যাংক লোন সুদের হার কত?

উত্তর: বিভিন্ন খাতের জন্য ডাচ বাংলা ব্যাংকের সুদের হার বিভিন্নরকম। তবে এদের মধ্যে খুব বেশি পার্থক্য নেই। সাধারণ নতুন লোনের জন্য ৮% এবং অন্য ব্যাংক থেকে টেক-ওভার লোনের জন্য ৭.৫% হারে ডাচ বাংলা ব্যাংক লোন দিয়ে থাকে।

প্রশ্ন: ডাচ বাংলা ব্যাংক লোন নিতে নূন্যতম কত টাকা মাসিক আয় হতে হবে?

উত্তর: নূন্যতম ৩০ হাজার টাকা মাসিক আয় থাকলে আপনিও ডাচ বাংলা ব্যাংক লোন নিতে পারবেন। তবে এক্ষেত্রে আপনার কর্মসংস্থানের প্রমাণাদি অবশ্যই বৈধ হতে হবে।

শেষ কথা 

ডাচ বাংলা ব্যাংক লোন পাওয়া খুবই সহজ। এবং অন্য ব্যাংক থেকে টেক-ওভার লোনের ক্ষেত্রে এখানে কোনো অতিরিক্ত ফি দিতে হয় না। 

উপরে উল্লিখিত নির্দিষ্ট খাতের জন্য নির্দিষ্ট ডকুমেন্টস দেখিয়ে আপনি সহজেই ডাচ্ বাংলা ব্যাংক থেকে লোন নিতে পারবেন। এছাড়াও আরো কিছু প্রশ্ন জানতে আমাদের কমেন্ট বক্সে কমেন্ট করতে পারেন অথবা ডাচ বাংলা ব্যাংকের কাষ্টমার কেয়ারে (১৬২১৬) ফোন দিতে পারেন।

2 thoughts on “ডাচ বাংলা ব্যাংক লোন সম্পর্কিত বিস্তারিত তথ্য 2022”

  1. আসসালামু আলাইকুম
    আমি পার্সোনাল লোনের জন্য একটি আবেদন করেছি।
    আমি জানতে চাচ্ছি আমার আবেদনটি সফলভাবে সাবমিট হয়েছে কিনা???

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

5 × 2 =

Scroll to Top