অগ্রণী ব্যাংক লোন সিস্টেম | Agrani Bank Loan

ব্যক্তিজীবনে বা ব্যাবসার প্রয়োজনে আমাদের অনেক সময় লোনের প্রয়োজন হয়। বিভিন্ন ব্যাংক থেকে  আমরা লোন গ্রহণ করে থাকি। ব্যাংকগুলো তাদের গ্রাহকদের বিভিন্ন শর্তসাপেক্ষে এই ধরণের সেবা প্রদান করে। অগ্রণী ব্যাংক এর মধ্যে অন্যতম। আজ আমরা অগ্রণী ব্যাংক লোন সম্পর্কে বিস্তারিত আলোচনা করবো।

অগ্রণী ব্যাংক তাদের গ্রাহকদের বেশ সহজ শর্তে এবং কম ইন্টারেস্টে লোন দেয়। বেশ কিছু ক্যাটাগরিতে, বিভিন্ন মেয়াদে এই লোন পাওয়া যায়। কোন কোন ক্যাটাগরিতে অগ্রণী ব্যাংক থেকে লোন নিতে পারবেন, লোন পাওয়ার শর্তসমূহ, এবং প্রয়োজনীয় ডকুমেন্টস, ইত্যাদি ছাড়াও অন্যান্য বিষয়গুলো সম্পর্কে বিস্তারিত জানতে পারবেন এখানে।

অগ্রণী ব্যাংক লোন

অন্যান্য ব্যাংকগুলোর তুলনায় অগ্রণী ব্যাংক লোন অনেক সহজ শর্তে পাওয়া যায়। তাছাড়াও বিভিন্ন সার্ভিস চার্জ অন্যান্য ব্যাংকগুলোর তুলনায় এখানে অনেক কম। মোট সাতটি ক্যাটাগরিতে এখান থেকে লোন পাওয়া যায়। সেগুলো হলো-

  1. পার্সোনাল লোন,
  2. যেকোনো কাজের জন্য লোন,
  3. মুক্তিযোদ্ধা সংক্রান্ত লোন,
  4. অবসরপ্রাপ্ত সরকারি কর্মকর্তাদের লোন,
  5. বিদেশি কর্মীর জন্য লোন,
  6. শর্ট টার্ম এসএমই লোন,
  7. গ্রিন ফিনান্স লোন।
অগ্রণী ব্যাংক লোন সিস্টেম

লোনগুলো পাওয়ার জন্য আপনাকে নির্দিষ্ট কিছু শর্ত পূরণ করতে হবে। শর্তগুলো পূরণ করতে পারলে প্রতিষ্ঠান কর্তৃক প্রদত্ত অগ্রণী ব্যাংক লোন ফরম পূরণের মাধ্যমে আপনি লোনের জন্য আবেদন করতে পারবেন। প্রতিটি ক্যাটাগরির লোন সম্পর্কে বিস্তারিত জানতে লেখাটি পড়তে থাকুন শেষ পর্যন্ত।

পার্সোনাল লোন

আপনি যদি কোন চাকুরীজীবী হন এবং আপনার স্যালারী অ্যাকাউন্ট যদি অগ্রনী ব্যাংকে হয়ে থাকে তাহলে আপনি এখান থেকে পার্সোনাল লোন নিতে পারবেন। সর্বোচ্চ ১০ লক্ষ টাকা লোন নেওয়া যাবে, তবে টাকার পরিমাণ আপনার বেতনের উপর নির্ভর করবে। এই লোনের জন্য আবেদন করার শর্তগুলো নিম্নরূপ:

  • অগ্রণী ব্যাংক লিমিটেডে যে কোন বেতনভোগী ব্যক্তির জন্য প্রযোজ্য,
  • লোনের পরিসীমা সর্বোচ্চ ১০ লক্ষ টাকা,
  • আবেদনকারীর বয়স সীমা ১৮ থেকে ৫৫ বছর,
  • ইন্টারেস্ট রেট ৯%,
  • লোন পরিশোধের সময় সীমা সর্বোচ্চ ৫ বছর,
  • মাসিক কিস্তিতে পরিশোধ করতে হবে।

পার্সোনাল লোন নেওয়ার জন্য আপনাকে কোনো জামানত দিতে হবে না। পাশাপাশি সহজ প্রক্রিয়ার মাধ্যমে আপনি লোন পেয়ে যাবেন। আবেদন করার সময় ব্যাংকের সরবরাহকৃত কাগজপত্রের সাথে আপনাকে কিছু ডকুমেন্ট প্রদান করতে হবে।

প্রয়োজনীয় ডকুমেন্ট:

  • ঋণ গ্রহীতার দুই কপি ছবি এবং ভোটার আইডি কার্ডের ফটোকপি।
  • আপনি যে প্রতিষ্ঠানে চুকুরী করেন সেখানকার একটি প্রত্যয়নপত্র, নিয়োগপত্রের ফটোকপি এবং স্যালারী স্টেটমেন্ট।
  • আপনার দুইজন গ্যারান্টার প্রয়োজন হবে।
  • গ্যারান্টারের ভোটার আইডি কার্ডের ফটোকপি এবং দুই কপি ছবি।
  • আপনি যে বাসায় থাকেন সেখানকার ইউটিলিটি বিলের (বিদ্যুত বিল, গ্যাস বিল ইত্যাদি) ফটোকপি।

আবেদনপত্রের সাথে এই ডকুমেন্টগুলো সরবরাহ করলে আপনার লোনের আবেদন বিবেচনার জন্য ব্যাংক কর্তৃপক্ষ গ্রহণ করবেন।

যেকোনো কাজের জন্য লোন

এটিও চাকুরীজীবীদের জন্য লোন। আপনি যে কোন প্রতিষ্ঠানে 5 বছর ধরে চাকুরী করলে এই লোন নিতে পারবেন। যেকোন কাজের জন্য লোন নেওয়ার ক্ষেত্রে আপনি সর্বোচ্চ তিন লক্ষ টাকা নিতে পারবেন, যা আপনার বেতনের উপর নির্ধারিত হবে। এই লোন নেওয়ার জন্য শর্তগুলো নিম্নরূপ:

  • আপনাকে কোন প্রতিষ্ঠানে কমপক্ষে ৫ বছর কাজ করতে হবে,
  • ঋণের পরিমাণ সর্বোচ্চ ৩ লক্ষ টাকা,
  • ইন্টারেস্ট রেট ৯%, তবে পরিবর্তনযোগ্য,
  • একজন ব্যক্তিগত গ্যারান্টার এবং একজন সলভেন্ট গ্যারান্টার থাকতে হবে,
  • লোন পরিশোধের সময়সীমা সর্বোচ্চ ৫ বছর,
  • মাসিক কিস্তিতে লোন পরিশোধ করতে হবে।

উপরোক্ত শর্তগুলো পূরণের মাধ্যমে আপনি সহজেই যেকোন কাজের জন্য অগ্রণী ব্যাংক থেকে লোন পেয়ে যাবেন। খুব সহজ প্রক্রিয়ার মাধ্যমে সম্পন্ন করার কারণে দ্রুত এই লোন পাওয়া সম্ভব।

প্রয়োজনীয় ডকুমেন্ট: এই লোনের জন্যও পার্সোনাল লোনের মত একই ধরণের ডকুমেন্ট সাবমিট করতে হয়। এখানে একজন ব্যাক্তিগত গ্যারান্টার বলতে আপনার পরিবারের কেউ হতে হবে, যেমন বাবা, মা, ভাই, বোন ইত্যাদি। আর সলভেন্ট গ্যারান্টার এমন কেউ যে স্বচ্ছল এবং আপনি পরিশোধ করতে না পারলে সেই ব্যক্তি এটি পরিশোধ করার সক্ষমতা রাখে।

মুক্তিযোদ্ধা সংক্রান্ত লোন

বীর মুক্তিযোদ্ধা এবং তাদের পরিবারকে সহায়তা করার জন্য এই লোন কর্মসূচী গ্রহণ করা হয়েছে। যে সমস্ত মুক্তিযোদ্ধাদের ভাতা এবং আনুষাঙ্গিক সুবিধাদি অগ্রণী ব্যাংকের মাধ্যমে প্রদান করা হয়, তারা এই লোনের জন্য আবেদন করতে পারবেন।

একজন মুক্তিযোদ্ধা অথবা তার অবর্তমানে পরিবারের যে ভাতা গ্রহণ করছে সে এই লোনের জন্য আবেদন করতে পারবে। অনেকেই জানতে চান মুক্তিযোদ্ধাদের সুদমুক্ত লোন প্রদান করা হয় কি না। এখনো এমন কোন কার্যক্রম গ্রহণ করা হয়ননি। তাদেরকেও ব্যাংক নির্ধারিত হারে সুদে লোন নিতে হবে। এই লোন গ্রহণের জন্য নিম্নলিখিত শর্তগুলো প্রযোজ্য:

আরো পড়ুনঃ ডাচ বাংলা ব্যাংক লোন সম্পর্কিত বিস্তারিত তথ্য

  • বীর মুক্তিযোদ্ধা, যারা অগ্রণী ব্যাংকের কোন শাখা থেকে তাদের ভাতা বা সরকারী সুবিধা পান,
  • মুক্তিযোদ্ধাদের স্ত্রী, ছেলে, মেয়ে যারা ছোট ব্যাবসা বা কোন স্ব-কর্মসংস্থানের সাথে জড়িত তারা এই লোন পেতে পারেন,
  • লোনের পরিমাণ সর্বোচ্চ ৫ লক্ষ টাকা,
  • ইন্টারেস্ট রেট ৮%, তবে পরির্তনযোগ্য,
  • লোন পরিশোধের সময় সীমা সর্বোচ্চ ৫ বছর,
  • মাসিক বা ত্রৈমাসিক সরকার প্রদত্ত ভাতা থেকে সমন্বয় করা হবে।

উপরোক্ত শর্তগুলোর সাথে প্রয়োজনীয় কাগজপত্র সরবরাহ করলে আপনি খুব সহজে এবং দ্রুত লোন পেতে পারেন। এই লোনের ক্ষেত্রেও কোন জামানতের প্রয়োজন হবে না। তবে দুই জন সাক্ষী প্রয়োজন হবে যাদের মধ্যে অন্তত একজন বীর মুক্তিযোদ্ধা হতে হবে।

প্রয়োজনীয় ডকুমেন্ট:

  • ব্যাংক প্রদত্ত আবেদনপত্রের সাথে আবেদনকারীর জাতীয় পরিচয়পত্রের ফটেকপি এবং সদ্য তোলা ২ কপি পাসপোর্ট সাইজের ছবি।
  • মুক্তিযুদ্ধের প্রমাণক, যেমন লাল মুক্তি বার্তা, ভারতীয় তালিকা অথবা বেসামরিক গেজেটের স্পষ্ট ফটোকপি এবং সম্মানিত বীর মুক্তিযোদ্ধা এমআইএস এর ফটোকপি জমা দিতে হবে।
  • এর সঙ্গে সম্মানি ভাতা বই এবং ব্যাংকের চেক বইয়ের ফটোকপি আবেদন পত্রের সাথে দিতে হবে।
  • দুইজন সাক্ষীর জাতীয় পরিচয়পত্রের ফটোকপি এবং এক কপি করে পাসপোর্ট সাইজের ফটো।
  • সাক্ষীদের মধ্যে একজন বীর মুক্তিযোদ্ধা এবং অন্যজন পরিবারের সদস্য হতে হবে।

অবসরপ্রাপ্ত সরকারি কর্মকর্তাদের লোন

অবসরপ্রাপ্ত সরকারি কর্মকর্তারা অগ্রণী ব্যাংক থেকে এই ঋণ সুবিধা পেতে পারেন। আপনাকে এই ক্যাটাগরির লোন সুবিধা পেতে নিম্নলিখিত রিকোয়ারমেন্টগুলো পূরণ করতে হবে।

  • অবসরপ্রাপ্ত সরকারী কর্মকর্তা/স্টাফ হতে হবে,
  • বয়স সীমা সর্বোচ্চ ৬৫ বছর,
  • ঋণের পরিমাণ সর্বোচ্চ ৫ লক্ষ টাকা,
  • ইন্টারেস্ট রেট ৯% (পরিবর্তনযোগ্য),
  • পরিশোধের সময়সীমা সর্বোচ্চ ৫ বছর,
  • মাসিক কিস্তির মাধ্যমে পরিশোধ করতে হবে, যা পেনশন ভাতা/সুবিধা থেকে সমন্বয় করা হবে,
  • ব্যক্তিগত গ্যারান্টার থাকতে হবে।

অন্যান্য লোনগুলোর মতো এটিও সহজ একটি প্রক্রিয়া। আপনাকে অতিরিক্ত কোন ঝামেলা করতে হবে না। প্রয়োজনীয় কাগজপত্র সরবরাহ করে আবেদন করার মাধ্যমে অল্পদিনেই এই লোন পেয়ে যেতে পারেন।

প্রয়োজনীয় ডকুমেন্ট: আপনাকে পার্সোনাল লোনের অনুরূপ কাগজপত্র এখানে সরবরাহ করতে হবে। গ্যারান্টারের জাতীয় পরিচয়পত্রের ফটোকপি এবং পাসপোর্ট সাইজের ফটো আবেদন পত্রের সাথে জমা দিতে হবে।

বিদেশি কর্মীর জন্য লোন

আপনি যদি বিদেশে চাকরি করতে যেতে চান এবং আপনার বৈধ ভিসা থাকে তাহলে এই বিদেশি কর্মীর জন্য লোন ক্যাটাগরিতে অগ্রনী ব্যাংক লোন নিতে পারবেন। অনেক ক্ষেত্রেই দেখা যায় যারা বিদেশ যেতে চাচ্ছেন, শেষ মূহুর্তে টাকর সমস্যা দেখা দেয় বা লোন প্রয়োজন হয়। তাদেরকে সহায়তা করার জন্য অগ্রণী ব্যাংক এই প্রকল্পটি হাতে নিয়েছে। এই লোন পেতে হলে যে রিকোয়ারমেন্টগুলো লাগবে তা নিম্বরূপ:

  • বিদেশে চাকরির বৈধ ভিসা পেতে হবে এবং চাকরি করতে যেতে ইচ্ছুক,
  • পাসপোর্ট, ভিসা, প্রয়োজনীয় প্রশিক্ষণ, স্বাস্থ্য পরীক্ষা, স্মার্ট কার্ড, বিমানের টিকিট সম্পন্ন করেছেন বা আংশিকভাবে সম্পন্ন হয়েছে,
  • চাকরির জন্য বিদেশ যেতে চাচ্ছেন এবং উপরোক্ত কাজগুলি সম্পন্ন করার জন্য লোন প্রয়োজন,
  • বয়স সীমা সর্বোচ্চ ১৮ থেকে ৪৫ বছর,
  • ঋণের পরিমাণ সর্বোচ্চ ৫০ হাজার টাকা থেকে ৯ লক্ষ টাকা,
  • ইন্টারেস্ট রেট ৯% (পরিবর্তনযোগ্য)
  • পরিশোধের সময় সীমা সর্বোচ্চ ১৫ থেকে ১৮ মাস,
  • সঞ্চয়ী অ্যাকাউন্ট থেকে মাসিক কিস্তিতে সমন্বয় করা হবে,
  • নিকট আত্মীয় ও ব্যক্তিগত গ্যারান্টার থাকতে হবে।

উপরোক্ত বিষয়গুলোর সাথে আপনার লোন চাহিদা সামঞ্জস্যপূর্ণ হলে আপনি লোনের জন্য আবেদন করতে পারবেন। এই লোনগুলো খুব দ্রুত পাওয়া যায়। এর জন্য আপনাকে আবেদন পত্রের সাথে প্রয়োজনীয় কিছু ডকুমেন্ট সাবমিট করতে হবে। গ্যরান্টারদের মধ্যে একজন নিকট আত্মীয় যেমন বাবা, মা, ভাই, বোন ইত্যাদি এবং একজন এমন কেউ যে আর্থিকভাবে স্বচ্ছল ও আপনার অনুপস্থিতিতে ঋণ পরিশোধের দায়িত্ব নিবে।

প্রয়োজনীয় ডকুমেন্ট:

  • আবেদনকারীর তিন কপি পাসপোর্ট সাইজের ছবি এবং পাসপোর্টের সত্যায়িত ফটোকপি জমা দিতে হবে।
  • সেই সঙ্গে আপনার ভোটার আইডি কার্ডের ফটেকপি, এলাকার ইউনিয়ন পরিষধের চেয়ারম্যান বা উপজেলা চেয়ারম্যান কর্তৃক প্রদত্ত সনদের সত্যায়িত ফটোকপি জমা দিতে হবে।
  • যাত্রার সম্ভাব্য তারিখ অথবা প্লেনের টিকিটের ফটোকপি জমা দিতে হবে।
  • গ্যারান্টারদের জাতীয় পরিচয়পত্রের ফটোকপি এবং পাসপোর্ট সাইজের ছবি দিতে হবে।

আপনি ব্যাংকের যে শাখায় আবেদন করবেন সেখানে আপনার একটি সঞ্চয়ী অ্যাকাউন্ট খুলতে হবে। তাছাড়া ঋণ পরিশোধের একটি হলফনামায় আপনাকে স্বাক্ষর করতে হবে। কাগজপত্র জমা হয়ে গেলে সাধারণত তিন কর্মদিবসের মধ্যে আপনার ভিসা যাচাইকরণ প্রক্রিয়া সম্পন্ন হয়ে যাবে। ভিসা ঠিক থাকলে আপনি নিশ্চিত হতে পারবেন লোন কবে নাগাদ পাবেন।

শর্ট টার্ম এসএমই লোন

এটি মূলত ক্ষুদ্র ব্যবসায়ীদের জন্য অগ্রণী ব্যাংক লোন। আপনি যদি একজন অভিজ্ঞ ব্যাবসায়ী হন এবং একটি বৈধ ব্যবসা থাকে তাহলে এই লোনের জন্য আবেদন করতে পারবেন। এই ক্ষেত্রে সর্বোচ্চ ৩ লক্ষ টাকা ঋণ সুবিধা পাবেন যা আপনাকে ২ বছরের মধ্যে পরিশোধ করতে হবে। শর্ট টার্ম এসএমই লোন পাওয়ার ক্ষেত্রে নিম্নলিখিত শর্তগুলো প্রযোজ্য:

  • ক্ষুদ্র ব্যবসা থাকতে হবে,
  • ব্যবসায় কমপক্ষে ৩ বছরের অভিজ্ঞতা থাকতে হবে,
  • বয়স সীমা ১৮ থেকে ৬০ বছর হতে হবে,
  • ইন্টারেস্ট রেট ৯% (পরিবর্তনযোগ্য)
  • লোনের পরিমাণ সর্বোচ্চ ৩ লক্ষ টাকা,
  • সর্বোচ্চ ২ বছরের মধ্যে লোন পরিশোধ করতে হবে,
  • গ্যারান্টার থাকতে হবে।

সাধারণত আপনি যে এলাকায় ব্যাবসা করেন তার পার্শ্ববর্তী অগ্রণী ব্যাংকের শাখায় আবেদন করার মাধ্যমে এই লোন পেতে পারেন। মাসিক কিস্তুতে পরিশোধ হওয়া এই লোনগুলো সহজ পদ্ধতিতে প্রক্রিয়াকরণ করা হয়, তই সহজেই এবং অল্প সময়ে লোন পাবেন।

প্রয়োজনীয় ডকুমেন্ট:

  • আবেদনকারীর দুই কপি পাসপোর্ট সাইজের ছবি এবং জাতীয় পরিচয়পত্রের ফটোকপি আবেদনপত্রের সাথে জমা দিতে হবে।
  • সেই সাথে ট্রেড লাইসেন্স এর ফটোকপি, ব্যাংক স্টেটমেন্ট এবং ক্ষেত্র বিশেষ টিআইএন সার্টিফিকেটের ফটোকপি জমা দিতে হবে।
  • ভাড়া করা ব্যাবসা প্রতিষ্ঠান হলে সেই ভাড়ার চুক্তিপত্রের কপি দিতে হতে পারে।
  • পাশাপাশি লাগবে গ্যারান্টারদের ছবি এবং জাতীয় পরিচয়পত্রের ফটোকপি।

কিছু ক্ষেত্রে আপনাকে জামানত হিসাবে জায়গা-জমির দলিল বা এই সংক্রান্ত কাগজপত্র জমা দিতে হতে পারে। ব্যক্তিগত গ্যারান্টির সঙ্গে পরিবারের একজন গ্যারান্টার দিতে হবে যেমন বাবা, মা, ভাই, বোন ইত্যাদি। তাছাড়া এমন আর একজন গ্যারান্টার দিতে হবে যে স্বচ্ছল এবং ব্যাংক তার উপর আস্থা রাখতে পারে। সবকিছু ঠিকমতো জমা দিলে অল্প কয়েকদিনের মধ্যেই লোন পেয়ে যাবেন।

গ্রিন ফিনান্স লোন

বিভিন্ন উদ্দোক্তা যাদের পরিবেশের উন্নতির কাজে ব্যবহৃত হয় এমন কোন প্রকল্প বাস্তবায়ন বা প্রকল্প সহায়তার জন্য লোন প্রয়োজন তারা এই ক্যাটাগরিতে লোন নিতে পারবেন। এখানে লোন পরিশোধের নির্দিষ্ট সময় সীমা প্রকল্প এর উপর নির্ভর করে। এই লোনগুলো স্বল্প মেয়াদী থেকে শুরু করে দীর্ঘ মেয়াদের হয়ে থাকে। এই শ্রেণীর অগ্রণী ব্যাংক লোন আবেদনের শর্তগুলো নিম্নরূপ:

  • পরিবেশ ভিত্তিক প্রযুক্তি, প্রকল্প, শিল্প বা ব্যবসার জন্য যেমন সোলার হোম সিস্টেম, মিনি গ্রিড, সেচ পাম্পিং সিস্টেম, বায়ো গ্যাস প্ল্যান্ট, হাইড্রো পাওয়ার প্লান্ট, পিইটি বোতল পুনঃপ্রক্রিয়াকরণ প্ল্যান্ট, এলইডি বাল্ব উৎপাদন, সোলার ব্যাটারি রিপ্রসেসিং প্লান্ট, ইফ্লুয়েন্ট ট্রিটমেন্ট প্ল্যান্ট ইত্যাদিতে বিনিয়োগ।
  • জামানত নিরাপত্তা, ব্যাক্তিগত গ্যারান্টি, কর্পোরেট গ্যারান্টি এবং পোস্ট ডেটেড চেক দিতে হবে,
  • মাসিক/ত্রৈমাসিক/ বার্ষিক হিসাবে সমান বা অসমান কিস্তি হতে পারে,
  • ইন্টারেস্ট রেট ৯%, (পরিবর্তনযোগ্য)
  • স্বল্প বা দীর্ঘ মেয়াদী হতে পারে।

আপনি কোন উদ্দোক্তা হলে এই লোন আপনাকে যথেষ্ট সহায়তা করতে পারবে। ব্যাংক কর্তৃক সরবরাহকৃত লোন ফরম পূরণ এবং প্রয়োজনীয় ডকুমেন্ট জমা দিয়ে লোনের জন্য আবেদন করতে পারবেন।

প্রয়োজনীয় ডকুমেন্ট: এই ঋনের ক্ষেত্রে প্রয়োজনীয় ডকুমেন্ট নির্দিষ্টভাবে বলা যায় না। এটি নির্ভর করবে আপনার প্রকল্প, শিল্প বা ব্যবসার উপর ভিত্তি করে। এই ক্যাটাগরিতে লোন প্রয়োজন হলে আপনার নিকটস্থ অগ্রণী ব্যাংকের শাখায় যোগাযোগ করুন।

অন্যান্য লোন

প্রযুক্তি বিকাশে সহায়তা করার জন্য বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের ছাত্রছাত্রীদের অগ্রণী ব্যাংক ল্যাপটপ লোন দিয়ে থাকে। এগুলো সাধারণত ছাত্র-ছাত্রীদের সহজ শর্তে প্রদত্ত লোন, যার মাধ্যমে কর্তৃপক্ষের অনুমোদন সাপেক্ষে ল্যাপটপ বা ডেক্সটপ কম্পিউটার কেনার জন্য ব্যবহার করতে পারবে। “প্রযুক্তি বিকাশে অগ্রণী” শিরণামে ব্যাংক কর্তৃপক্ষ এই সেবা চালু করেছে।

এই লোনের আওতায় ছাত্রছাত্রীরা সর্বোচ্চ ৬০ হাজার টাকা পর্যন্ত লোন নিতে পারবে। ৭% ইন্টারেস্ট রেটে এই লোন পরিশোধের মেয়াদ হবে সর্বোচ্চ চার বছর।

অগ্রণী ব্যাংক লোন ক্যালকুলেটর

লোন নেওয়ার আগে অনেকেই ঠিক বুঝে উঠতে পারে না কি পরিমাণ লোন নিলে কত টাকা মাসে বা প্রতি কিস্তিতে পরিশোধ করতে হবে। অগ্রণী ব্যাংক লোন ক্যালকুলেটর এই ব্যাপারে আপনাকে সহায়তা করবে। আপনি ব্যাংকের অফিসিয়াল সাইটে এই ক্যালকুলেটর পেয়ে যাবেন।

এই ফিন্যানসিয়াল ক্যালকুলেটর ব্যবহার করে জানতে পারবেন ইন্টারেস্ট রেটের উপর ভিত্তি করে কত টাকা লোন নিলে কত বছর মেয়াদে কত টাকা পরিশোধ করতে হবে। পাশাপাশি আপনার মাসিক কিস্তি কত হবে ইত্যাদি।

মনে করি আপনি তিন বছর মেয়াদে ২ লক্ষ টাকা পার্সোনাল লোন নিতে চাচ্ছেন। সেই ক্ষেত্রে ফিন্যানসিয়াল ক্যালকুলেটরের রেট অফ ইন্টরেস্ট-এ ৯ সেট করলাম, যেহেতু পার্সোনাল লোনের ইন্টারেস্ট রেট ৯%। লোন টিউনার তিন বছরে সেট করলাম এবং লোন অ্যামাউন্ট-এ দুই লক্ষ সেট করলাম।

ফলাফল আসছে আপনাকে সুদ সহ মোট  ২,২৮,৯৫৮ টাকা পরিশোধ করতে হবে। যেখানে মাসিক সুদ আসবে টাকা মাত্র। এভাবে আপনি যে কোন পরিমাণ লোনকে সহজেই অগ্রণী ব্যাংক লোন ক্যালকুলেটর ব্যবহার করে পরিশোধ সংক্রান্ত বিস্তারিত তথ্য জানতে পারবেন।

আরো পড়ুনঃ সিটি ব্যাংক লোন নিয়ে বিস্তারিত | City Bank Loan System

উপসংহার

অগ্রণী ব্যাংক অন্যান্য যে কোন ব্যাংকের তুলনায় অনেক কম সুদে লোন দেয়। যে কারণে অগ্রণী ব্যাংক লোন সবারই প্রথম পছন্দ। তাছাড়া বিভিন্ন ব্যাংক অনেক হিডেন চার্জ থাকে, ফলে গ্রাহককে তার ধারণার চেয়ে বেশি টাকা দিতে হয়। তবে অগ্রণী ব্যাংকের এই ধরনের কোন হিডেন চার্জ নেই, সহজ শর্তে বিভিন্ন ক্যাটাগরিতে লোন প্রদান করে।

আপনি যদি লোন নেওয়ার কথা চিন্তা করেন, অবশ্যই আপনার প্রথমেই একবার অগ্রণী ব্যাংকে যোগাযোগ করা উচিত। হয়তো বা আপনার কাঙ্খিত পরিমাণ লোন এখান থেকেই বেশ সহজে পেয়ে যাবেন।

Leave a Comment

Your email address will not be published.

sixteen + three =

Scroll to Top